মাকে নিয়ে হজে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান !

বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটার বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এবার তার মমতাময়ী মাকে নিয়ে হজে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে যাচ্ছেন না তার একমাত্র মেয়ে ও তার স্ত্রী। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে এ তথ্য জানাগেছে। তবে কবে যাচ্ছেন তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পবিত্র হজ পালন করার জন্যই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ না খেলে ছুটি নিয়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ থেকে চলতি বছরের হজে ফ্লাইট শুরু হয়েছে। যারা হজ করবেন, তারা অনেকেই চলেও গেছেন। বিশ্বকাপ শেষে দীর্ঘ ছুটি কাটানো সাকিব দেশে না ফিরে বিদেশ ভ্রমণে বেরিয়েছিলেন। বিদেশ ভ্রমণের শেষ অংশে সাকিব ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে।

সেখানে স্ত্রী শিশির ও কন্যা আলাইনাকে নিয়ে সময় কাটানোর পর ২৭ জুলাই সকালে দেশে ফিরে এসেছেন তিনি। বিশ্বকাপে ব্যাট ও বল হাতে (৬০৬ রান ও ১১ উইকেট) অসাধারণ অলরাউন্ডিং পারফরমেন্স দেখান সাকিব। ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, সাকিব এবার তার মমতাময়ী মাকে নিয়ে হজে যাবেন। একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, এ বছর সাকিব তার নিজের মতোই হজে যাবেন। আর এবার সঙ্গে নিয়ে যাবেন মমতাময়ী মাকে। ২-৩ আগস্ট হজের উদ্দেশ্যে সাকিব ঢাকা ত্যাগ করতে পারেন। সূত্র আরো জানায়, সাকিব মাকে নিয়ে হজে যাবেন বলেই স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির ও কন্যা আলাইনা হাসানকে অব্রিকে যুক্তরাষ্ট্রে রেখে একা দেশে ফিরেছেন।

মাত্র তিন মিনিটেই পাওয়া যাবে ব্যাংক লোন! ই-কর্মাস জগতের অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান জ্যাক মা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে তার একটি অনলাইন ব্যাকিং সেবা রয়েছে। মূলত চীনে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরকে দ্রুত সময়ে লোন দিয়ে চীনের অর্থনৈতিক উন্নয়ন সাধনে জ্যাকমার এই অনলাইন ভিত্তিক ‘মাই ব্যাংক’ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। মাই ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে হলে, হাতে থাকা স্মার্টফোনের সাহায্যে কয়েক মূহুর্তেই সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে লোন পাওয়া যায়। আর ঋণ গ্রহণের এই পুরো কার্যক্রমটি সম্পন্ন হতে সময় নেয় মাত্র তিন মিনিট। অর্থাৎ ঘরে বসে সঠিক তথ্যাদি জমা দিয়ে ঋণ নিতে পারবেন তিন মিনিটেই।

বিশ্ব পরিমণ্ডলে বাণিজ্যিক প্রসার এবং আধুনিক প্রযুক্তির সৃজনশীল উন্নয়নে, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তাদের সবচেয়ে দ্রুত সময়ে লোন দিয়ে থাকে মাই ব্যাংক। সাধারণত চীনে ৮০ শতাংশ ব্যাংকই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরকে ঋণ দিতে অপরাগতা জানায়। আর এই ঋণ গ্রহণের প্রক্রিয়া সম্পন্নের জন্য সময় নেয় ৩০ দিন। ফেব্রুয়ারিতে ব্যাংকিং নিয়ন্ত্রণ কমিশন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ দিয়ে সহযোগিতা এবং দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য দেশটির ধনিক শ্রেণীদের প্রতি আহ্বান জানায়। চীনের ন্যাশনাল ফিন্যান্স এবং ডেভেলপমেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির প্রায় এক তৃতীয়াংশ ৮০ মিলিয়নের বেশি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রয়েছে যারা যথার্থ ঋণের অভাবে নিজেদের ব্যবসা দাঁড় করাতে পারছেন না। সুত্রঃ ডেইলি-বাংলাদেশ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *