বিয়ের পিঁড়িতে আবার কারিশমা?

ভারতীয় অভিনেত্রী কারিশমা কাপুর ফের বিয়ে করতে চলেছেন- কিছুদিন ধরে এমন গুজবই ভাসছে বলিউডের বাতাসে। এবার কারিশ্মার বাবা রণধীর কাপুরের একটি বক্তব্য সেই গুজবের পালে হাওয়া লাগিয়েছে আরও। ব্যবসায়ী সঞ্জয় কাপুরের সঙ্গে ১৪ বছরের সংসারের ইতি টানেন কারিশমা গত বছরেই। ইদানিং তাকে ঘুরতে দেখা যাচ্ছে মুম্বাই ভিত্তিক আরেক ব্যবসায়ী সঞ্জীব তোশনিওয়ালের সঙ্গে। একসঙ্গে বিভিন্ন রেস্তোরাঁ ও পার্টিতে দেখা যাচ্ছে তাদের। গোপন খবর, চুটিয়ে প্রেম করছেন তারা। এখন শোনা যাচ্ছে বিয়ের জন্যও প্রস্তত এই জুটি।

কারিশ্মার বাবা রণধীর কাপুরের কিন্তু এই সম্পর্ক নিয়ে কোনো আপত্তি নেই। এমনকী কন্যা দ্বিতীয়বার বিয়ের পিড়িতে বসলে তাকে আশীর্বাদও দেবেন বলে স্থির করেছেন। সাংবাদিকদের তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘যদি কারিশমা বিয়ে করতে চায়, তাহলে আমার আশীর্বাদ সবসময় ওর সঙ্গে রয়েছে। ওদের বয়সও কম। আমি ওদের ছবি দেখেছি। যদি ও আবার নতুন করে জীবন শুরু করতে চায়, ওর ছেলেমেয়েরা এবং ওর প্রাক্তন স্বামী এই সিদ্ধান্তে খুশি থাকে, তাহলে আমার সমর্থন সবসময় ওর সঙ্গে রয়েছে।’ সঞ্জয়ের সঙ্গে বিয়ে করে দুই সন্তান সামাইরা ও কিয়ানের মা হন কারিশমা। সেই সময়ই অভিনয় থেকে বিদায় নেন এক সময়ের জনপ্রিয় এই বলি নায়িকা।

সেরাটা খেলেই জাতীয় দলে জায়গা শক্ত করতে চান সৈকত আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিসিবি একাদশের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত চান, সেরাটা খেলেই জাতীয় দলে নিজের জায়গা শক্ত করতে। অন্যদিকে, আফগানিস্তান বোলার আশরাফ জানান, প্রস্তুতি ম্যাচে হেরে গেলেও, বাকি ম্যাচগুলোতে প্রতিপক্ষ হিসেবে কঠিন হয়ে উঠবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত বলেন, ‘এটা আমার স্বাভাবিক খেলা ছিলো। এই খেলা নিয়ে আমার অন্য রকম একটা পরিকল্পনা ছিলো। আমি মনে প্রানে চাচ্ছিলাম এই ম্যাচটা খেলতে। এদিকে আফগান পেসার আশরাফ বলেন, ‘বাংলাদেশে আসার আগে ভারতে আমরা অনুশীলন ক্যাম্প করেছি। যেটা এখন আমাদের কাজে দেবে। কারণ ভারতের সাথে বাংলাদেশের কন্ডিশনের অনেক মিল রয়েছে। তারপরও মনে করি, বাংলাদেশের বিপক্ষে সামনের ম্যাচগুলো প্রতিদ্বন্দীতাপূর্ণ হবে। কারণ তারা এখন সব বিভাগেই ভালো করছে।

বাংলাদেশি দর্শক ধরতে বাংলায় ধারাভাষ্য, শুভেচ্ছাদূত প্রসেনজিৎ বাংলাদেশি দর্শক ধরতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ধারাভাষ্য এবার বাংলাতেও শোনা যাবে। বাংলা ভাষার ক্রিকেট ম্যাচের ব্র্যান্ডিং করতে তাই আইপিএল কর্তৃপক্ষ এবার তাদের ’শুভেচ্ছা-দূত’ করেছেন বাংলা ভাষার জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। যদিও কর্তৃপক্ষ শুধু মাত্র বাংলাদেশি দর্শক ধরতেই এমন বাংলা ভাষায় সম্প্রচারের উদ্যোগ নয় বলে জানান। তারা বলছেন, বাংলাদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, আসাম, বিহার সহ বিশ্বের ৩০ কোটি বাঙালির কাছে পৌঁছে যাওয়াই তাদের লক্ষ্য।

আজ শনিবার থেকে শুরু ভারতের সবচেয়ে ব্যয়বহুল টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নাম্যান্ট। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় আইপিএলের ধারাভাষ্যকার হিসাবে আগে থেকেই যুক্ত আছেন। তবে ইংরেজি ভাষাতেই বাঙালির দাদার মুখ থেকে খেলার ধারাভাষ্য শুনতে হয়েছে এতো দিন। তবে এবার স্থানীয় ভাষাকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে আইপিএল কর্তৃপক্ষ। বাংলা ভাষার পাশাপাশি তেলেগু, তামিল ও কন্নড় ভাষাতেও খেলা সম্প্রচার করার উদ্যোগ নিয়েছে তারা।

সে কারণে সামনে এসেছে এবার ’বাংলা ভাষার ধারাভাষ্য’। ভারত, বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ত্রিশ কোটি বাঙালির কাছে মুখের ভাষায় আরও বেশি কাছাকাছি পৌছনোর সুযোগ নিচ্ছে ’স্টার মুভিজ’। তাই বাংলার শুভেচ্ছা-দূত করা হয়েছে দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে ভীষণ খুশি টালি-সুপারস্টার প্রসেনজিৎ। এ নিয়ে প্রতিক্রিয়ায় অভিনেতা বললেন, ’আমি একজন ক্রিকেট ভক্ত। প্রতি বছর আইপিএলের সময় নিয়মিত টিভির পর্দায় চোখ রাখি। ২০১৮ সালের আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। এবার আমার মাতৃভাষায় আইপিএল এনজয় করতে পারবো’।

টানা দ্বিতীয় পরাজয়ে দিশেহারা পাকিস্তান একের পর এক ম্যাচ হেরে বিপর্যস্ত পাকিস্তানের অনুশীলন সেশন। বিশ্বকাপের ঠিক আগেই মিসবাহ-উল-হক এবং উমর আকমলের ধারাবাহিক ব্যাটিং পারফর্মম্যান্সের পরও টানা দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে হারলো পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচের মত এ ম্যাচেও পাকিস্তান আগে ব্যাটিং করে ২৬৮ রানের টার্গেট ছুড়ে দেয় প্রেসিডেন্ট একাদশের দিকে। মিসবাহ-উল-হক এবং উমর আকমল যথাক্রমে ৮৮ এবং ৭৭ রান করেন। জবাবে ১ বল বাকি থাকতেই ১ উইকেটে ম্যাচটি জিতে নেয় প্রেসিডেন্ট একাদশ। প্রেসিডেন্ট একাদশের মাইকেল পোলার্ড একাই ১৫৩ রানে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের মোহাম্মাদ ইরফান ৩৯ রানে এবং বিলাওয়াল ভাট্টি ৪২ রানে ৩ টি করে উইকেট নেন। এর আগে প্রথম ম্যাচে মিসবাহ-উল-হকের শতরানের উপর ভিত্তি করে পাকিস্তান ৩১৩ রান করেছিল। প্রেসিডেন্ট একাদশ সেই ম্যাচটি ৬ উইকেটে হারিয়েছিল তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *