ডিসি সুলতানার দেয়া ৭৩ জনের নিয়োগ বা’তিলের দাবি !

কুড়িগ্রামে সদ্য প্র’ত্যাহার হওয়া জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীনের কর্মকালীন ইউনিয়ন পরিষদের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে দুই দফায় নিয়োগ পাওয়া ৭৩ জনের নিয়োগ বা’তিলের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন জেলার ইউনিয়ন পরিষদে স্থাপিত ডিজিটাল সেন্টার পরিচালনাকারীরা।

বুধবার (১৮ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে জেলা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার পরিচালক ফোরামের আয়োজনে প্রেস ক্লাবের সামনে কুড়িগ্রাম-চিলমারী সড়কে মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সমন্বয়কারী মাহতাব আলী, জেলা ফোরামের সভাপতি সাইদুর রহমান, সেক্রেটারি নবীউল ইসলাম ও সদস্য হাছিনা খাতুন প্রমূখ।

মানববন্ধনে বক্তারা অ’ভিযোগ করে বলেন, বিগত ২০১০ সালের নভেম্বর মাস থেকে বিনা বেতনে সামান্য পারিশ্রমিক নিয়ে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার পরিচালনা করে আসছেন তারা।

এমতাবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে জনবল নিয়োগের জন্য বিগত ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে পরিপত্র জারি করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।তারা আশা করেছিলেন নিয়োগে তাদের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

কিন্তু সদ্য প্র’ত্যাহার হওয়া জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন গত বছরের অক্টোবর মাসের দিকে ২৩ জন ইউনিয়ন পরিষদের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর নিয়োগ দেন।এই নিয়োগের বি’রুদ্ধে রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের সেকেন্দারপাড়া

গ্রামের রহিমুল্ল্যা মিয়ার ছেলে আব্দুল আউয়াল মিয়াসহ ২৬ জন ডিজিটাল সেন্টার পরিচালনাকারী উচ্চ আদালতে রিট করলে কেন তাদের নিয়োগ দেওয়া হবে না মর্মে রুল জারি করে ৬ মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দিয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়।গত বছরের ডিসেম্বর মাসের ১২ তারিখে এই আদেশের কপি পাওয়া যায়।

তারা অ’ভিযোগ করে আরও বলেন, জেলা প্রশাসক চলতি মার্চ মাসে আরও ৫০ জন হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর নিয়োগ দিয়েছেন।এই নিয়োগে ৮৫৭ জন আবেদন করেন।গত ৬ মার্চ এদের লিখিত পরীক্ষা নেয়ার পর ১৫০ জনের মতো পরীক্ষার্থীকে উত্তীর্ণ দেখিয়ে পরদিন ৭ মার্চ তাদের কম্পিউটার চালানোর পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

এরপর পরদিন ৮ মার্চ এদের মধ্য থেকে ৯৮ জনের মৌখিক পরীক্ষা নিয়ে ওই দিন ৫০ জনকে নিয়োগপত্র দিয়ে ১৬ মার্চের মধ্যে যোগদানের জন্য বলা হয়। অর্থ্যাৎ মাত্র ৩ দিনে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। এভাবে দুই দফায় ৭৩ জনকে দেওয়া নিয়োগ বাতিলের দাবি জানান তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *